1. hasanchy52@gmail.com : admin :
  2. amarnews16@gmail.com : Akram Hossain : Akram Hossain
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১২:৫২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
মানিকগঞ্জে সেলফী পরিবহনের ধাক্কায় এক জনের মৃত্যু মানিকগঞ্জে  তিতুমীর একাডেমির সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান ও অভিভাবক সমাবেশ মানিকগঞ্জে মহিলা কাবাডি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হরিরামপুরে সম্মিলিত প্রয়াসের বৃক্ষ রোপণ মানিকগঞ্জের ১৫জন গুনী শিল্পীকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান মানিকগঞ্জে ছাত্রলীগেরহস্তক্ষেপে কোটা আন্দোলনের মানববন্ধন পন্ড মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে প্রশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্রের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচী মানিকগঞ্জে পবিত্র আশুরা উদযাপন উপলক্ষে প্রেস ব্রিফিং সিংগাইরে আ‘লীগ নেতা ভিপি শহিদ ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে মানিকগঞ্জে জেলা যুবদলের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন মিছিল

প্রেমিকার স্বজনের মারধরে যুবকের মৃত্যু

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩৭৪ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার:

পাবনার ঈশ্বরদী পৌর এলাকায় প্রেমিকার কাছে রেখে আসা মোবাইল ফোন আনতে গিয়ে স্বজনদের মারধরে প্রাণ হারিয়েছেন হৃদয় হোসেন (১৮) নামে এক যুবক।

রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টার দিকে ঈশ্বরদী পৌর এলাকার সাঁড়া গোপালপুর মতি মোল্লার মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

হৃদয় ঈশ্বরদীর সাঁড়া ইউনিয়নের মাঝদিয়া ইসলামপাড়া গ্রামের দিনমজুর আব্দুল হালিমের ছেলে। তিনি সাঁড়া ঝাউদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, সাঁড়া গোপালপুর গ্রামের ইসলাম হোসেনের মেয়ে খাদিজা খাতুনের (১৬) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল হৃদয়ের। সেই সুবাদে শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে হৃদয় খাদিজার বাড়িতে যান। এসময় বাড়ির লোকজন টের পেলে সে পালিয়ে যান। যাওয়ার সময় তার মোবাইল ফোনটি প্রেমিকার কাছে রয়ে যায়।

রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মোবাইলটি নিতে ফের প্রেমিকার বাড়িতে গেলে খাদিজার ভাই আনিছ ও খালাতো ভাই সজিব তাকে মারধর করেন। একপর্যায়ে হৃদয় জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় আনিছ ও সজিব। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঈশ্বরদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক মমতাজ পারভীন জানান, দুপুরে দুই যুবক অচেতন অবস্থায় হৃদয়কে হাসপাতালে নিয়ে আসে। হৃদয় তাদের বাড়িতে কাজ করতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছে বলে তারা জানায়। জরুরিভিত্তিতে ইসিজি করে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। এরপর ওই দুই যুবক পালিয়ে যায়। নিহতের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

হৃদয়ের বাবা আব্দুল হালিম বলেন, দুপুর একটার সময় আমার ছেলের মোবাইলে ফোনে কল করলে অন্য একজন ফোনটা রিসিভ করে। সে সময় ছেলের চিৎকার শুনেছি, তারপর থেকে মোবাইলটি বন্ধ রয়েছে।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসীর উদ্দীন বলেন, খবর পেয়ে ঈশ্বরদী হাসপাতাল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2014 Amar News
Site Customized By Hasan Chowdhury