1. hasanchy52@gmail.com : admin :
  2. amarnews16@gmail.com : Akram Hossain : Akram Hossain
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৫:০৯ অপরাহ্ন

মানিকগঞ্জের হিযবুত তাওহীদের শীর্ষ জঙ্গি নেতা বাতেন রাজধানীতে গ্রেফতার

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ১৬২ বার দেখা হয়েছে

 

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি-

সরকার কর্তৃক কালোতালিকা ভুক্ত সংগঠন হেযবুত তাওহীদের সকল কার্যক্রম বন্ধ ও সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ করার দাবীতে মানিকগঞ্জে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর স্মারক লিপি প্রদান করেছে জেলা সর্বস্তরের আলেমসমাজ।
অপরদিকে জেলার কোন আলেম-ওলামা হেযবুত তাওহীদের নিয়ে কোনমন্তব্য বাবিরুদ্ধে কোন কথা বললে তাদের জিহ্বা টেনে ধরা হবে বলে হুমকি দিয়েছেন।

সব মিলিয়ে জেলায় আলেমসমাজসহ ইসলাম প্রিয় জনগনেরমধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।আলেমসমাজের স্মারকলিপিতে উল্লেখ করেন যে,“মানিকগঞ্জ জেলার অধিবাসীগণ প্রাচীনকাল থেকেই আলেমউলামাদের দিক নির্দেশনা মোতাবেক শান্তিপূর্ণ ভাবে যাবতীয় ধর্মীয় কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। আমাদের জেলায় ধর্ম নিয়ে উল্লেখযোগ্য কোন দ্বদ্ব সংঘাত নেই। যুগযুগ ধরে চলে আসা এই শান্তিপূর্ণ অবস্থান অব্যাহত থাকাই আমাদের কাম্য। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় মানিকগঞ্জ জেলায় নতুনকরে মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে ভ্রান্ত ও বিপথগামী একটি  উগ্রবাদী সংগঠন“হেযবুত তাওহীদ”। এরকার্যক্রম খবুই ভয়ংকর। একাধিকপ্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া মারফত আমরা জেনেছি যে, ইহা আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর কালো তালিকা ভক্ত একটি উগ্র সংগঠন যারা কুরআন হাদীসের ভুল ব্যাখ্যা করে ইসলামধর্ম সম্পর্কে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে ভিন্নমত প্রতিষ্ঠাকরতে বদ্ধ পরিকর। সম্প্রতি মানিকগঞ্জে তাদের তৎপরতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে যা আমাদের সকলের জন্য অশনিসংকেত।

আমরা অত্যন্ত উদবেগ ও ক্ষোভের সাথে জানাচ্ছি যে, হেজবুত তাওহীদ গত ০৪ আগষ্ট ২০২৩ শুক্রবার মানিকগঞ্জ জেলা শাখার উদ্যোগে বিকেল ৩ টায় মানিকগঞ্জ শিল্পকলা একাডেমি হল রুমেকর্মী সম্মেলন আয়োজন করে এবং ১৮ আগষ্ট ২০২৩ ইং তারিখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ অনলাইনে প্রচার করে। উক্ত সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন হেজবুত তাওহীদ মানিকগঞ্জ জেলা সভাপতি মহিদুল ইসলাম, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হেজবুত তাওহীদের ঢাকা বিভাগীয় সভাপতি ডা. মাহবুব আলম মাহফুজসহ সংগঠনের স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানে বিতর্কি ত মাওলানা শামসুল হক জামালী (৪০), পিতা: মহিদুর রহমান, মাতা: মোছা: সাহেরা খাতুন, বর্তমান ঠিকানাঃসিদ্দিকনগর, পূর্ব দাশরা, মানিকগঞ্জ। স্থায়ী ঠিকানাঃগ্রাম- বায়রা, থানা- সিংগাইর, জেলা- মানিকগঞ্জ এর বক্তব্য অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ মুসলমানদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। তারা আমাদের (আলেম-উলামাদের) দৃষ্টি আকর্ষণ করে ক্ষোভ প্রকাশ করে। এতে (প্রচারিত ভিডিও গুলোতে) দেখা যায় উক্ত বক্তার বক্তব্য ছিল উস্কানি মূলক ও হুমকি স্বরূপ। যা সকলের জন্য ভীতিকর। বক্তা তার বক্তব্যের এক পর্যায়ে হেজবুত তাওহীদের কার্যক্রমে বাধা দিলে মানিকগঞ্জ জেলার আলেমদের জিব্বাহ টেনে ধরার হুমকি দেয়। তার এহেন উগ্র বক্তব্যে আমজন সাধারণসহ আমরা আলেম সমাজক্ষুব্ধ, উদ্বিগ্ন ও সংকিত। এমতাবস্থায় দেশের আইনের প্রতিশ্রদ্ধা রেখে সরকার ও প্রশাসনের নিকট উক্ত উগ্র সংগঠনের সকল কার্যক্রম মানিকগঞ্জ জেলায় স্থায়ী ভাবে নিষিদ্ধ করার আবেদন করছি এবং উক্ত বিতর্কিত মাওলানা শামসুল হক জামালীর ব্যাপারে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে জোড় দাবী জানাচ্ছি। ”
ইতিপূর্বে  দৈনিক প্রথম আলো  ,দৈনিক কালের কণ্ঠ ,দৈনিক সমকাল সহ দেশের বিভিন্ন জাতীয় গনমাধ্যমে হেযবুত তাওহীদ যে সরকারের কালো তালিকাভুক্ত সংগঠন সেই  সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশিত হয়।

এ বিষয়ে শামসুলহক জামালীর সাথে বারবার যোগাযোগ করা হলেও তার মোবাইলবন্ধ পাওয়া যায়। স্বারক লিপির ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে, পুলিশ সুপার গোলাম আযাদ খান বলেন, এ বিষয়ে কোন বক্তব্য নেই। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক রেহেনা আকতারের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। স্মারকলিপিতে স্বাক্ষরকারী মাওলানা আব্দুর মতিন বলেন,আমার জেলার সবোর্চ্চ পর্যায়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের বিষয়টি স্মারকলিপির মাধ্যমে অবগত করেছি।আশা করি ওনারা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।আমরা পরিস্থিতি দেখে এবং পরবর্তীতে সবাইকে নিয়ে মিটিং এর মাধ্যমে সিন্ধান্ত গ্রহন করে কর্মসূচি নিবো।

হেযবুত তাওহীদের নেতা-নেত্রী স্থানীয় কানিজ ফাতেমা স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষিকা পারভীন আক্তার ও তার স্বামী গড়পাড়া আরজুবানু উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহনেওয়াজ। তারা এই সংগঠনের প্রসারের জন্যে ব্যাপক প্রচার-প্রচারনা করে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।এ বিষয়ে কাজিন ফাতেমা স্কুল এন্ড কলেজের প্রিন্সিপাল মোঃআঃহালিমবলেন যে, এই সংগঠন সম্পর্কে যা শুনলাম তাতে তাদের কাজ ঠিকনা।আর আমার প্রতিষ্টানের কেউ সম্পৃক্ত থাকলে আমরা বিষয়টি দেখবো।

মানিকগঞ্জ জেলা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সাধারন সম্পাদক ও জেলা হজ¦ কল্যান সমিতির সভাপতি মোঃখবিরুল আলম চৌধুরী বলেন,মহান আল্লাহ ,রাসুল (সাঃ),সাহাবা (রাঃ) তথা ইসলাম নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর কোন অধিকার কারো নাই। এই সংগঠনটি মানুষকে ভুল পথে চালানোর জন্যে যা করা দরকার তাই করে যাচ্ছে।সম্মানিত আলেম সমাজের বিরুদ্ধে অমার্জনীয় ভাষায় গালাগাল করেছে।আমরা আশা করবো,সরকারের দায়িত্বশীল মহল বিষয়টি বিবেচনা করে দ্রত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।কারন,জনগন ক্ষেপে গেলে আইন-শৃংখলার অবনতি হতে পারে আর এই উগ্রবাদী সংগঠনটি চাচ্ছে ও তাই।
বিষয়টি নিয়ে জেলার ইসলাম প্রিয় জনগনের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ ও অসণেÍাষ বিরাজ করছে।

শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2014 Amar News
Site Customized By Hasan Chowdhury