1. hasanchy52@gmail.com : admin :
  2. amarnews16@gmail.com : Akram Hossain : Akram Hossain
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন

একজন দেশপ্রেমিক একজন হিরো স্কোয়াড্রন লিডার ‘অসীম জাওয়াদ

  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১১ মে, ২০২৪
  • ১২৪ বার দেখা হয়েছে

দেওয়ান সাদমান শাওন, স্টাফ রিপোর্টার :

বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর স্কোয়াড্রন লিডার অসীম জাওয়াদ।যার ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন বড় হয়ে হবেন পাইলট,যুদ্ধ বিমানের পাইলট।২০০৯সালে এইচএসসি পাশ করে মেডিক্যাল,ইঞ্জিনিয়ারিং এ ভর্তির সুযোগ পাওয়া সত্ত্বেও বেছে নেন বাংলাদেশ বিমানবাহিনী।২০০৭ সালে সাভার ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এবং কলেজ থেকে এসএসসি এবং ২০০৯ সালে উক্ত প্রতিষ্ঠান থেকে কৃতিত্বের সাথে এইচএসসি পাশ করেন তিনি।এরপরে তিনি বিমানবাহিনীর সকল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যুক্ত হন বিমানবাহিনীর সাথে।তিনি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনাল(বিইউপি) এর প্রতিষ্ঠাকালীন শিক্ষার্থী।

বিমানবাহিনীতে চাকুরীরত অবস্থায় তিনি পেয়েছেন অসংখ্য খেতাব বা পুরুষ্কার।

নিজের ট্রেনিং জীবনে সকল বিষয়ের শ্রেষ্ঠত্বের জন্য পেয়েছিলেন গৌরবমণ্ডিত “সোর্ড অফ অনার” ।

তিনি PT-6 , L-39ZA , F-7MB, F-BG1 ইত্যাদি বিমান চালিয়েছেন। তিঁনি ছিলেন F-7MG1 এর অপারেশনাল পাইলট ও এলিমেন্ট লিডার । এছাড়াও ভারতীয় বিমান বাহিনীতে কোর্সে অংশগ্রহণ করে সাফল্যের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘Chief of Air Staff’s Trophy for Best in Flying (Indian Air Force)’ অর্জন করেন। এছাড়াও তিঁনি চীন থেকে ফাইটার পাইলটস ফাউন্ডেশন ট্রেনিং কোর্স, ভারত থেকে অপারেশনাল ট্রেনিং ইন এভিয়েশন মেডিসিন ফর ফাইটার পাইলটস কোর্স, বেসিক এয়ার স্টাফ কোর্স ও কোয়ালিফাইড ফ্লাইং ইন্সট্রাক্টর্স কোর্স সম্পন্ন করেন।“ফ্লাইং ইনস্ট্রাক্টরস” কোর্সে শ্রেষ্ঠত্বের জন্য পেয়েছেন “মফিজ ট্রফি”। এছাড়া তার দায়িত্বশীলতা ও কর্মক্ষেত্রে দক্ষতার জন্য প্রশংসাপত্র সহ বিভিন্ন ট্রফি পেয়েছেন বিমানবাহিনী প্রধান এর থেকে। চাকরীকালীন সময়ে তিনি বিমান বাহিনীর বিভিন্ন ঘাঁটি ও ইউনিটে গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়োজিত ছিলেন।

আসিম জাওয়াদ মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার গোপালপুর এলাকার ডা. মোহাম্মদ আমানউল্লাহর ছেলে। তার বাবা আমান উল্লাহ একজন চিকিৎসক আর মা নিলুফা খানম সাভার ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষকা ছিলেন।জাওয়াদ নারায়ণগঞ্জে বিয়ে করেছেন। তার স্ত্রীর নাম অন্তরা আক্তার।দম্পতির এক ছয় বছরের মেয়ে এবং দেড় বছরের একটি ছেলে আছে।স্ত্রী,ছেলে,মেয়েকে নিয়ে জাওয়াদ চট্টগ্রামে বিমানবাহিনীর ঘাটি জহরুল হক অফিসার্স আবাসিক এলাকার নীলিমাতে থাকতেন

গত ৯ই মে সকাল ১১ঘটিকায়, চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর একটি ইয়াকভলেভ ইয়াক ১৩০ মডেলের প্রশিক্ষণ যুদ্ধবিমান দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটে। পরে আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে পাইলট আসিম জাওয়ানের মৃত্যু হয়।

চট্টগ্রামে প্রথম নামাজে জানাজা,ঢাকা সেনানিবাসে বাশার বিমানঘাঁটিতে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা এবং ১০ই মে শুক্রবার মানিকগঞ্জে শহীদ-তপন মিরাজ স্টেডিয়ামে সর্বশেষ ও তৃতীয় নামাজে জানাজা শেষ এ শহরের সেওতা কবরস্থানে নানার কবরে চিরনিদ্রায় শায়িত হন স্কোয়াড্রন লিডার অসিম জাওয়াদ।

বিমানবাহিনী চেয়েছিলেন তাকে ঢাকায় বিমানবাহিনীর সামরিক কবরস্থানে দাফন করতে।কিন্তু মা নিলুফা খানম চান তার একমাত্র সন্তান এর দাফন মানিকগঞ্জে তার কাছেই হোক।মায়ের কথা অনুযায়ী তার দাফন মানিকগঞ্জে করা হয়।

শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2014 Amar News
Site Customized By Hasan Chowdhury