1. hasanchy52@gmail.com : admin :
  2. amarnews16@gmail.com : Akram Hossain : Akram Hossain
রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪৫ অপরাহ্ন

ঘিওর কুস্তা ইছামতী নদীর উপরে ঝুঁকিপূর্ন বেইলি ব্রিজ দিয়ে চলাচল করছে ২০ গ্রামের মানুষ

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২১ জুলাই, ২০১৯
  • ১২৬৮ বার দেখা হয়েছে

মোঃ সাইফুল ইসলাম:

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার কুস্তা গ্রামের ইছামতী নদীর উপরে ঝুঁকিপূর্ন বেইলী ব্রিজ দিয়ে প্রায় ২০টি গ্রামের হাজার-হাজার জনগন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে। ব্রিজটির নিচের পাটাতন ক্ষয় হয়ে ছিদ্র হয়ে গেছে। যানবাহন চলাচলের সময় লক্করছক্কর শব্দ হয়। দীর্ঘ প্রায় ২২ বছর যাবৎ ব্রিজটি সংস্কার না করার দরুন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে  এলাকার জনগনসহ পন্যবাহী যানবাহন । যে কোন সময় দুর্ঘটনার আশংকা করছে ভূক্তভোগি এলাকার জনগন।

জানা গেছে, উপজেলা এলজিইডি ১৯৯৭ সালে ১৪ লাখ টাকা ব্যয়ে এই ব্রিজটি নির্মান করেন। দীর্ঘদিন অতিবাহিত হবার পরেও পুনরায় কোন ধরনের সংস্কার না করায় ব্রিজটি মাঝে ছোট গর্ত হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে ঝুঁকি নিয়ে পন্যবাহী ট্রাক, মিনিবাস , অটো ট্রেম্ফু, অটোরিকসা মালামাল আনা নেওয়া করছে। কুস্তা কফিলউদ্দিন দরজী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, কুস্তা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ প্রায় ২০টি গ্রামের হাজার – হাজার লোকজন চলাচল করে।  এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন কুস্তা, ভররা, বিনোদপুর, খলসী, কুমুরিয়া, নারচি, গবর নারচি, শ্রীধরনগন ও জিয়নপুরসহ ৩টি ইউনিয়নের লোকজনের যাতায়াতের ক্ষেত্রে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অপর দিকে পুরাতন ধলেশ^রী নদীর ভাঙ্গনে কুস্তা, শ্রীধরনগর গ্রামের বহু ফসলি জমি ঘড়বাড়ি নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। ভাঙ্গন এলাকার বহু মানুষ অন্যত্র চলে গেছে। প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে ভাঙ্গন ভয়াবহ আকার ধারন করে। বর্তমানে নদী পাশর্^বর্তী লোকজন আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি কুস্তা গ্রামের সন্তান ইকরামুল ইসলাম খবির জানান, বহু দিন আগে ব্রেইলি ব্রিজটি  নির্মান করা হয়।  প্রতিদিন হাজার হাজার লোকজন চলাচল করে তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে। এ ছাড়া পুরাতন ধলেশ^রী নদীতে কুস্তা গ্রামটি বিলিন হবার পথে। কাজেই ব্রেইলি ব্রিজ এবং নদী ভাঙ্গন রোধকল্পে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তিনি প্রশাসনের সূদৃষ্টি কামনা করেছেন। ইউপি চেয়ারম্যান অহিদুল ইসলাম টুটুল জানান, কুস্তা ইছামতি নদীর উপরে ব্রেইলি ব্রিজটি খুবই ঝুঁকিপূর্ন। এলাকার বহু মানুষ এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। জরুরি ভিত্তিত্বে ব্রিজটি নির্মান এবং ভাঙ্গন রোধকল্পে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা দরকার। উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ সাজ্জাকুর রহমান জানান, আমি ক্ষতিগ্রস্থ কুস্তা গ্রামের ব্রিজটি সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখেছি। এবং একটি বরাদ্দ চেয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। আশা করছি জরুরি কাজ শুরু হবে। এলাকার জনগন জরুরি ভিত্তিত্বে ব্রিজটি নির্মানের জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

 

শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2014 Amar News
Site Customized By Hasan Chowdhury