1. hasanchy52@gmail.com : admin :
  2. amarnews16@gmail.com : Akram Hossain : Akram Hossain
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০১:২১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
মানিকগঞ্জে সেলফী পরিবহনের ধাক্কায় এক জনের মৃত্যু মানিকগঞ্জে  তিতুমীর একাডেমির সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান ও অভিভাবক সমাবেশ মানিকগঞ্জে মহিলা কাবাডি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হরিরামপুরে সম্মিলিত প্রয়াসের বৃক্ষ রোপণ মানিকগঞ্জের ১৫জন গুনী শিল্পীকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান মানিকগঞ্জে ছাত্রলীগেরহস্তক্ষেপে কোটা আন্দোলনের মানববন্ধন পন্ড মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে প্রশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্রের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচী মানিকগঞ্জে পবিত্র আশুরা উদযাপন উপলক্ষে প্রেস ব্রিফিং সিংগাইরে আ‘লীগ নেতা ভিপি শহিদ ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে মানিকগঞ্জে জেলা যুবদলের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন মিছিল

আশুলিয়ায় দুই বান্ধবীকে গণধর্ষন প্রিন্স কিশোর গ্যাংয়ের ৩ সদস্যকে আটক

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪৫৩ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার :

আশুলিয়ায় দুই বান্ধবীকে গণধর্ষণের অভিযোগে প্রিন্স কিশোর গ্যাংয়ের ৩ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আরও ৯ কিশোর পলাতক রয়েছে।

বুধবার ভোরে আশুলিয়ার ভাদাইল ও নয়ারহাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। বুধবার সকালে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক আসওয়াদুর রহমান। প্রায় ১ মাস আগে একই বাসার ভাড়াটিয়া দুই কিশোরের সাথে পবনারটেক এলাকার একটি হাউজিং এলাকায় বেড়াতে গিয়ে ওই গ্যাংয়ের হাতে গণধর্ষণের শিকার হয়েছিলেন তারা।

আটকরা হলো ডায়মন আলামিন, জাকির ও পান রাকিব। পান রাকিব ভাদাইল এলাকায় মাঝে মধ্যে শাক বিক্রি করে বলে জানা গেছে। বাকি দুই জন শিক্ষার্থী। তবে তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানানো হয়নি।
গ্যাংয়ের অন্যান্য সদস্যরা হলো- দলনেতা সারুফ, তার সহযোগী আলমিন, জিদান, রেদওয়ানসহ আরও কয়েকজন।

ভুক্তভোগীদের সাথে বেড়াতে যাওয়া কিশোর ইসরাফিল জানায়, আশুলিয়ার ভাদাইল এলাকায় ভাড়া থেকে চুল কারখানায় কাজ করতো ভুক্তভোগীরা। প্রায় ৩৫ দিন আগে একই বাসার ভাড়াটিয়া দুই কিশোরের সাথে দুই বান্ধুবী ভাদাইলের গুলিয়ারচক এলাকায় বেড়াতে যায়। এসময় তাদের চারপাশ দিয়ে ঘিরে ফেলে প্রিন্স কিশোর গ্যাঙ্গের ১২ থেকে ১৪ জন সদস্য। পরে ভুক্তভোগীর সাথে বেড়াতে যাওয়া দুই কিশোরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। এক পর্যায়ে তাদের মারধর করে এক জায়গায় বসিয়ে রাখে। পরে ভুক্তভোগীদের একটু আড়ালে নিয়ে ১২ জন কিশোর ধর্ষণ করে এবং ভিডিও ধারণ করে। এবং কয়েক দিনের মাথয়ি তারা ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধমে প্রকাশ করে। ভিডিও ফাঁস হলে ভুক্তভোগী দুই বান্ধবী গ্রামের বাড়ীতে চলে যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঘটনার প্রায় ১ মাস পর কিশোর গ্যাংয়ের অভ্যন্তরীন দ্বন্দ্বের কারনে ভিডিও ফাঁস হয়ে যায়। ভিডিও ফাঁস হওয়ার পর গ্যাংয়ের প্রধান সারুফের বাবা আকবর আলী প্রিন্স কিশোর গ্যাঙ্গের অন্যান্য সদস্যসহ অভিযুক্তদের পরিবারের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে স্থানীয় মাদবরদের নিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয় নি। পরে ধারণকৃত ভিডিওর মাধ্যমে শনাক্ত করে অভিযান চালিয়ে ৩ ধর্ষককে আটক করেছে পুলিশ।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক আসওয়াদুর রহমান জানান, ভিডিও ফাঁস হওয়ার পরপরই কোন অভিযোগ না পেলেও তদন্তে নামে আশুলিয়া থানা পুলিশ। পরে অভিযান চালিয়ে তিন গ্যাং সদস্যকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এঘটনায় আশুলিয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2014 Amar News
Site Customized By Hasan Chowdhury